স্মার্টফোনের মাধ্যমে ট্যাক্সি সেবা প্রদানকারী আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান উবার বাংলাদেশে যাত্রা শুরু করার দুইদিনের মাথায় হোঁচট খেল। সরকারী অনুমোদন ব্যতিরেকে এ ধরনের সেবা প্রদান করা বেআইনি বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ)।

শুক্রবার দেশের গনমাধ্যমগুলোতে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিআরটিএ জানায়, বিআরটিএ তথা সরকারের অনুমোদন ছাড়া কোন ধরনের ট্যাক্সিক্যাব সার্ভিস পরিচালনা করা সম্পূর্ণ বেআইনি, অবৈধ ও শাস্তিযোগ্য অপরাধ। বিআরটিএ’র ইঞ্জিনিয়ারিং শাখার পরিচালক মোঃ নুরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এ বিজ্ঞপ্তিতে উবার এ ধরনের অনুমোদন না নিয়ে সেবা প্রদান না করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে ট্যাক্সিক্যাব সার্ভিস গাইডলাইন ২০১০ উদ্ধৃত করে বলা হয়, ‘ট্যাক্সিক্যাব পরিচালনা করা হয় “ট্যাক্সিক্যাব সার্ভিস গাইডলাইন ২০১০” অনুযায়ী। কোনো কোম্পানি ট্যাক্সিক্যাব চালাতে চাইলে তাকে অবশ্যই বিআরটিএর মাধ্যমে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অনুমতি নিতে হবে। ভাড়ায় চালিত বা রেন্ট-এ-কার হিসেবে পরিচালিত মোটরকার ও মাইক্রোবাসের জন‌্য আলাদা সিরিজে (প/ছ) রেজিস্ট্রেশন নিতে হয়। এ ছাড়া মোটরযান বিধিমালা, ১৯৪০-এর বিধি-‘১৬২ এ’ অনুযায়ী ভাড়ায় চালিত প্রতিটি মোটরগাড়ি ও মাইক্রোবাসের আলাদা রঙ (কালো বডি ও হলুদ টপ) থাকা এবং মোটরযান অধ্যাদেশ ১৯৮৩-এর ৫১ ধারা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় রুট পারমিট নেওয়া বাধ্যতামূলক।

উবারের সেবাপ্রদান মোটরযান আইন ও বিধানের পরিপন্থী ঘোষনা করে বিজ্ঞপ্তিতে এ ধরনের বেআইনি কার্যকলাপ থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট ‘উবার’ মালিক ও চালকগনকে অনুরোধ করা হয়। অন্যথায়, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের হুশিয়ারী দেয়া হয়।

বিআরটিএ’র বিজ্ঞপ্তি সম্পর্কে উবারের বক্তব্য এখনো জানা যায় নি।