ব্রাক ব্যাংকের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট জারা জাবিন মাহবুব শেয়ার করেছেন তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে। কিভাবে তিনি নিজের বিকাশ সাধন করেছেন বন্ধুর পথ সামলিয়ে এবং কিভাবে ক্যারিয়ার গঠনে এগিয়ে যেতে বিপদ সংকুল পথ পাড়ি দিতে হয়েছে। মেয়েদের চাকরিতে প্রবেশ করা একসময় ট্যাবু ছিলো। সেই পর্যায় থেকে দেশের অন্যতম ব্যাংকের উচ্চ পর্যায়ে দায়িত্ব পালন করা অনেক কঠিন ছিলো তার জন্য। কিভাবে তিনি সেসব জয় করে এসেছেন কথা বলেছেন সে বিষয়েই।

জারা জাবিনের সমিপেঃ

”আমি কখনো ভাবিনি আমাকে দিয়ে মডেলিংয়ের মত কাজ করা সম্ভব হবে। যেমনটা বলছিলাম আমি আমার পরিবারের সুন্দরি কোন মেয়ে ছিলাম না। তখন মাত্র একটাই টিভি চ্যানেল ছিলো এবং আমি তখন চারটা কমার্শিয়ালে অভিনয় করি। এটা সেসময়কার কথা যখন মডেলিং ছিলো সমাজে নিষিদ্ধ কিছু। আমার ব্যাক্তিগত শিক্ষা হচ্ছে যতক্ষণ তোমার সততা এবং আত্মবিশ্বাস থাকবে ততক্ষন তুমি সবকিছুই করতে পারবে। তুমি যদি কিছু করতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে সমালোচনার মুখোমুখি হতে হবে।  তুমি যদি মনে করো এটা সহ্য করতে পারবে না তবে আমার মনে হয় তোমার নতুন কিছু করার চেষ্টা না করাই ভালো। আমি গত একুশ বছর কাজ করেছি বিভিন্ন কোম্পানীতে এখনো আমার এমন কিছু শুনতে হয় যেটা মেনে নেওয়া অনেক কঠিন।

তুমি যদি কিছু করতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাকে সমালোচনার মুখোমুখি হতে হবে।  তুমি যদি মনে করো এটা সহ্য করতে পারবে না তবে আমার মনে হয় তোমার নতুন কিছু করার চেষ্টা না করাই ভালো।

আমি এটাকে জয় করে আসছি পনের বছর বয়স থেকে যখন মডেলিংয়ের জন্য সমালোচনা শুনতে হয়েছিলো। এ সময় আমি নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করি যাতে রিয়্যাক্ট না করতে হয়।

আমার অর্জনঃ

“নিজের সিদ্ধান্তের প্রতি দৃঢ় হও এবং কক্ষনো তোমাকে ছোট করার সুযোগ দিবেনা কাউকে। যদিও এটা অনেক কঠিন কিন্তু তোমার করতেই হবে। যে যে কাজ বা বিষয় গুলো তোমাকে একদণ্ড শান্তি দেয় বা এসব কঠিন সিচুয়েশন গুলো মোকাবেলা করতে সাহায্য করে সেসব করো।  যদি তুমি জানো এবং বিশ্বাস করো যে তুমি যা করছো নিজের জন্য, প্রতিষ্ঠানের জন্য এবং পরিবারের জন্য তা সঠিক তবে সেই কাজ এগিয়ে নিতে মনোবল দৃঢ় করো এবং কাজ চালিয়ে যাও। কিসের প্রতি তোমার প্যাশন কাজ করে সেটা আগ থেকেই ঠিক করে নাও না হয় পরবর্তীতে অথই সমুদ্রে সাঁতার কাটতে হবে। তুমি যদি তোমার জীবনসঙ্গীর উপর ভালোবাসার মোহ বিস্তার করতে পারো তবে তুমি দৈনন্দিনের কাজের প্রতিও ভালোবাসা জন্মাতে পারবে। যে যেই জবটাই করুক না কেনো তার উচিৎ সেটাকে ভালোবাসা কারণ কোন জবই বিরক্তিকর নয় যদি সেটা ছোটও হয়।

সফলতার পথেঃ

যারা আমার সফলতার জন্য সমর্থন এবং অবদান রেখেছেন তাদেরকে কৃতজ্ঞতা জানাতে আমার কোনই কার্পণ্য নেই। আমার সফলতার গল্প গুলো শেয়ার করতে উপভোগ করি। এবং আমার সাফল্যে অবদানকারীদের আমি সাকসেস সার্কেল বলি। এই সার্কেলটা তোমাকে  সাহায্য করবে ওসব মানুষদের খোঁজ পাইয়ে দিতে যারা তোমার জীবনে অবদান রাখতে পারবে। তোমার যদি একটা অটুট ও শক্তিশালী সার্কেল থাকে তবে তোমার সফলতার পথ অনেকটাই সহজ হয়ে যায়। আলহামদুলিল্লাহ্‌, এক্ষেত্রে আমি খুবই ভাগ্যবতী। এত বছর যাবত আমি শিখেছি যে এই সার্কেলটার অবিশ্বাস্য পাওয়ার আছে যেটা তোমার চলার পথের জ্বালানী হিসেবে কাজ করবে। আমি মনে করি অন্যদের সাথেও সফলতা শেয়ার করা এবং যখন তোমার সাহায্য অন্যের দরকার হবে তখন তাদের পাশে দাঁড়ানো তোমাকে একটা চমৎকার কম্যুনিটি গড়ে তুলতে সাহায্য করবে।

অনেক মানুষই আছে যারা আমার চেয়েও অনেক বেশি কিছু অর্জন করতে পেরেছে। কিন্তু আমি যেটা পেয়েছি তা হলো মানুষের অবিশ্বাস্য সমর্থন। তাদের জন্য আমার কঠিন কাজও সহজ হয়ে যেত।

ভাগ্যের খোঁজেঃ

আমার ফিলোসফি সহজ, তোমাকে যে কাজই দেওয়া হোক, সেটাকে আলিঙ্গন করো, চালিয়ে নাও এবং তোমার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টাকে অনুপস্থিত হতে দিওনা। চ্যালেঞ্জ ছাড়া জীবন রসকষহীন। এখনো চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন না হলে খুঁজে বের করো কোথায় চ্যালেঞ্জ আছে।

সফলতার কোন ছোটখাট পথ নেই। যদি আমি কাজ না করি তবে যা হতে চাই সেটা হতে পারবোনা। আমার ফিলোসফি সহজ, তোমাকে যে কাজই দেওয়া হোক, সেটাকে আলিঙ্গন করো, চালিয়ে নাও এবং তোমার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টাকে অনুপস্থিত হতে দিওনা। চ্যালেঞ্জ ছাড়া জীবন রসকষহীন। এখনো চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন না হলে খুঁজে বের করো কোথায় চ্যালেঞ্জ আছে। সেটা অতিক্রম করার মাধ্যমেই তুমি নিজেকে যোগ্য করতে সক্ষম হবে।

ভয় না পেয়ে তোমার স্বপ্ন অন্বেষণ করো। যদি তুমি কবি হতে চাও, কবিতা লিখো তারপর পাবলিশারের কাছে যাও। কারণ তুমি যদি এটা না করো একদিন অনুতাপ করবে। নিজের ভিতর কবিতার ঝুড়ি নিয়ে মৃত্যুবরণ করোনা। আমরা পৃথিবীতে কারণ ছাড়া আসিনি। সেই কারণ খুঁজে বের করো। আমার জীবনের আহ্বান হচ্ছে আমি যা ই করি সেটাকে আরো ভালো করা। যদি এটা কল সেন্টার হয়, কিংবা কাস্টমার রিলেশনশিপে হয় অথবা অন্য কোথাও। আমি সেটাকেই আমার জায়গা থেকে উত্তম করার জন্য কাজ করবো। কাজকে ভালোবাসো, একদিন এটাই তোমার জীবনের আহ্বান হয়ে দাঁড়াবে।“